দুই শর্ত মেনে এ বছর হজ করতে পারবে ১০ লাখ মানুষ - online bangla news

এ বছর দেশ ও দেশের বাইরের ১০ লাখ মানুষকে হজ পালনের অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব। তবে শর্ত হল হজযাত্রীর বয়স হতে হবে ৬৫ বছরের নিচে ও করোনাভাইরাসের পূর্ণ ডোজ টিকা নেওয়া থাকা লাগবে। দেশটির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে শনিবার আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। 

দুই শর্ত মেনে এবছর হজ করতে পারবে ১০ লাখ মানুষ - online bangla news
ছবি: আল জাজিরা
মন্ত্রণালয়টির এক বিবৃতিতে বলা হয়, "দুই পবিত্র মসজিদের জিম্মাদারী সরকারের নিকট সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হজযাত্রী ও নবী মুহাম্মদ (স.) এর দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা বিধান করা। এবং নিরাপদ ও আধ্যাত্মিক পরিবেশে বিশ্বের অধিক সংখ্যক মুসলমান যেন হজ পালন ও নবীর মসজিদ দর্শন করতে পারে, তা নিশ্চিত করা।"   

বিবৃতিতে আরও বলা হয় সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে হজযাত্রীদেরকে পিসিআর টেস্টের নেগেটিভ সনদ নিতে হবে। 

এ বছরের হজ জুলাইয়ের দিকে অনুষ্ঠিত হতে পারে। প্রত্যেক দেশ থেকে কোটা পদ্ধতিতে নির্দিষ্ট সংখ্যক মানুষকে হজের অনুমতি দেওয়া হবে। এর আগে ২০২১ সালে করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে মাত্র কয়েক হাজার লোককে হজ পালনের অনুমতি দেওয়া হয়। 

এর আগের বছর হজ করতে পারে মাত্র এক হাজার লোক। করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের পূর্বে হজ করার জন্য সৌদি আরবে প্রতি বছর প্রায় ২৫ লাখ লোক ভ্রমণ করতো।

হজ কী?

হজ্ব ইসলামের পাঁচ স্তম্ভের অন্যতম স্তম্ভ। সামর্থ্যবানদের জন্য জীবনে একবার হজ্ব করা ফরজ। কুরআন শরিফের সূরা আলে ইমরানের ৯৭ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, 'আর মানুষের মধ্যে যার সেখানে যাওয়ার সামর্থ্য আছে, আল্লাহর উদ্দেশ্যে ঐ ঘরের হজ্ব করা তার জন্য অবশ্য কর্তব্য।' 

ইসলাম : জিজ্ঞাসা ও জবাব নামক ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, 'নুসুক পালনের উদ্দেশ্যে কাবা শরিফ তথা বাইতুল্লায়ে হারাম গমন করাকে হজ্ব বলা হয়। নুসুক হচ্ছে- এমন কিছু কথা ও কাজ যা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের হজ্বের বিবরণে এসেছে। 

'যেমন- বাইতুল্লাহর চারদিকে সাত চক্কর তয়াফ (প্রদক্ষিণ), সাফা ও মারওয়া নামক পাহাড়দ্বয়ের মাঝে প্রদক্ষিণ, আরাফার ময়দানে অবস্থান, মীনার জমরাতগুলোতে (শয়ানের উপর) কংকর নিক্ষেপ ইত্যাদি। হজ্বের মধ্যে বান্দার জন্য প্রভূত কল্যাণ রয়েছে। 

যেমন আল্লাহ্‌র একত্ববাদের ঘোষণা দেওয়া, গুনাহ মাফ পাওয়া, মুসলমানদের সাথে পরিচিত হওয়া, দ্বীনি হুকুম-আহকামশেখা ইত্যাদি।'

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url